ক্রিকেটের উন্নয়ন চাইলে অপেক্ষাকৃত ছোট দলগুলোকে খেলার সুযোগ দিতে হবে বলছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস।ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী যাচ্ছেন ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াসহ চারটি দল নিয়ে সুপার সিরিজ আয়োজন করতে।কিংবদন্তি ক্রিকেটার সৌরভ গাঙ্গুলীর এমন সুপার সিরিজ আয়োজন চিন্তার পক্ষে নন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডু প্লেসিস।

তিনি বলেন, যত বেশি দল অংশ নেবে, ততই খেলাটার প্রসার ঘটবে। শুধু তিনটি দল নয়, ক্রিকেটের প্রসারের জন্য আরও বেশি দলকে নিয়ে প্রতিযোগিতা করা উচিত। অপেক্ষাকৃত ছোট দেশগুলো বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলারই সুযোগ পায় না। ওরা অনেক কম খেলে।

সুপার সিরিজ আয়োজনের পক্ষে নন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক রশিদ লতিফ। ইউটিউব ভিডিওতে পাকিস্তানের সাবেক এ তারকা ক্রিকেটার বলেছেন, ক্রিকেট খেলিয়ে দেশগুলোর মধ্যে কম শক্তিশালী দেশগুলোকে নিচু করে দেখানোর প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, শুনলাম চার দেশীয় টুর্নামেন্ট হবে। যেখানে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও আরেকটি দেশ খেলবে। অন্যরা কেন খেলবে না সেটিই বুঝলাম না। এভাবে ক্রিকেটের শক্তিধর দেশগুলোর নতুন জোট তৈরি হবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এর পর এ চার দেশের শাসন শুরু হবে। যেটি একেবারেই কাম্য নয়।

তিনি বলেন, ক্রিকেটে সব দেশই সমান। জোট থাকা উচিত নয়! সৌরভ নিজে এক সময় ক্রিকেটে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার শাসন থামাতে চেয়েছিলেন। সেই ব্যক্তিটিই কেন এ পথে হাঁটছেন বুঝলাম না। এ নিয়ে আইসিসির বাধা দেয়া উচিত।

সৌরভ জানিয়েছেন, সুপার সিরিজটি ২০২১ সাল থেকে শুরু হতে পারে। প্রথমবার টুর্নামেন্টটি ভারতের মাটিতে আয়োজিত হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে প্রতিযোগিতাটি প্রতি বছর বাকি তিন দেশে অনুষ্ঠিত হবে। এ নিয়ে আলোচনার জন্য ইংল্যান্ডে গিয়েছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ ও সচিব জয় শাহ। তাদের সুপার সিরিজের প্রস্তাবে কার্যত সম্মত হয়েছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।এ ব্যাপারে আইসিসির সঙ্গে কথা বলতেও রাজি বলে জানিয়েছে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here