মন ভালো নেই? ফল খান, ফল পাবেনই। প্রচুর পরিমাণে ফল এবং সবজি খাওয়া যে শারীরিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো তা সকলেই জানেন। কিন্তু সম্প্রতি একটি নতুন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যে শুধু শরীর নয়, মনের স্বাস্থ্য ভালো রাখতেও ফল আর সবজির গুণ অসীম।

লিডস বিশ্ববিদ্যালয়েরর নীল ওশিয়ান এবং পিটার হাওলি পরিচালিত নতুন গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, যারা খাবারে ফল এবং সবজি ব্যবহারের পরিমাণ বাড়িয়েছেন তাঁরা নিজেরাই জানিয়েছেন যে পাঁচ বছরেরও কম সময়ে তাঁদের মানসিক সুস্থতা এবং জীবনের সন্তুষ্টি অনেকখানি বেড়ে গিয়েছে।

এই গবেষণায় বলা হয়েছে, প্রতি দিনে খাবারে এক অংশও যদি ফল বা সবজি যোগ করা যায় তাহলে যা উপকার হয় তা মাসে অতিরিক্ত সাত থেকে আট দিন হাঁটার সমান উপকারি। উদাহরণস্বরূপ, ভিটামিন সি এবং ই বিষণ্নতার সঙ্গে সংযুক্ত প্রদাহের নানা উপসর্গ কমিয়ে দেয়।

গবেষকরা বলেন, প্রতিদিন মন ভালো রাখতে এক টুকরো ফলই যথেষ্ট! এতে শরীরের যেমন উপকার হচ্ছে, ভালো থাকছে আপনার মন, কমছে বিষণ্ণ দিনের সংখ্যা। সুতরাং মন ভালো রাখতে ফল খান নিয়ম করে।অস্ট্রেলিয়ান গবেষকরা জানিয়েছেন বেশি পরিমাণে ফল আর সবজি খেলে তা আপনাকে সুখী করবে।

প্রায় ১২ হাজারের উপর মানুষের উপর জরিপ চালায় দি ইউনিভার্সিটি অফ কুইন্সল্যান্ড (ইউকিউ)। ফলাফল হচ্ছে সারাদিনের মধ্যে আটভাগ বা এর বেশি সময় যারা ফল ও সবজি খায় তাদের মানসিক অবস্থা ভালো হতে থাকে।

ইউকিউ’য়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি গবেষক রেডজো মুজসিস বলেন, “বর্তমানে ফল ও সবজি নিয়ে যেসব নির্দেশিকা দেওয়া হয় তা শারীর কেন্দ্রিক, মানসিক নয়।”মানুষের ফল ও সবজি খাওয়ার পছন্দের উপর ভিত্তি করে তৃপ্তি, পীড়ন ও জীবনীশক্তির প্রতিক্রিয়া— এটাই ছিল মুজসিসের জরিপের বিষয়।

অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন (এবিসি) রেডিওতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “প্রতিদিন পাঁচটির বেশি ফল ও সবজি খাওয়া হলে এই ক্ষেত্রে আমাদের সুখী করতে পারে।”তিনি আরও জানান, জরিপকারীদের মধ্যে শতকরা ১০ ভাগের কম প্রতিদিন ১০ সার্ভিং খাবার খায়।

দি ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনিস্টিটিউটের ব্যাখ্যা অনুসারে এক সার্ভিং মানে হচ্ছে: একটি মাঝারি আকারের ফল (কলা, আপেল, কমলালেবু)। আধাকাপ কাঁচা, রান্না করা, টিনজাত বা হিমায়িত ফল বা সবজি। তিন, চারকাপ একশতভাগ খাঁটি ফল বা সবজির জুস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here